ডিএনসিসি মেয়রের ঝটিকা অভিযান ৩০ মিনিটেই দখলমুক্ত মিরপুরের ফুটপাত

জাতীয় মহানগর রাজনীতি লিড নিউজ সমগ্র বাংলা

আলিফ হাসান (স্টাফ রিপোর্টার)

ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশন (ডিএনসিসি’র) মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলামের ঝটিকা অভিযানে রাজধানী মিরপুরের হেমায়েত উদ্দীন বীর বিক্রম রোডে অবৈধভাবে দখল হওয়া ফুটপাত ৩০ মিনিটেই দখলমুক্ত করা হয়। এসময় ফুটপাতের পাশেই অবৈধভাবে গড়ে উঠা রাইনখোলা বাজারটিও অভিযান চালিয়ে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (৬ জানুয়ারি) সকাল সাড়ে ৯টার দিকে তিনি এই অভিযান পরিচালনা করেন। এ সময় ডিএনসিসির প্রধান স্বাস্থ্য কর্মকর্তা ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মোঃ জোবায়দুর রহমান, প্রধান প্রকৌশলী ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মুহঃ আমিরুল ইসলাম এবং ৭ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ তফাজ্জল হোসেন টেনু ও ৮ নম্বর ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ আবুল কাসেম মোল্লা আকাশ উপস্থিত ছিলেন।

ডিএনসিসি মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম নতুন বছর উপলক্ষ্যে মশক নিধন কার্যক্রম, পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম ও অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ অভিযানে নামেন। গতকাল বুধবারও তিনি মিরপুর এলাকায় ঝটিকা পরিদর্শনে গিয়ে রাস্তায় অবৈধভাবে ইট, বালুসহ নির্মাণসামগ্রী রাখার দায়ে কয়েকটি বাড়ির মালিক ও দোকানির বিরুদ্ধে মামলা ও জরিমানার নির্দেশ দেন।

মেয়র আতিকুল ইসলাম আজ সকাল সাড়ে ৯টায় মিরপুরের মশক নিধন কার্যক্রম পরিদর্শন করে ফিরছিলেন। হঠাত রাস্তার পাশে ফুটপাত দখল করে স্থাপিত কাঁচাবাজারটি তাঁর নজরে আসে। তাৎক্ষণিকভাবে তিনি গাড়ি থামিয়ে ফুটপাতে বাজার বসানোর কারণ জানতে চান।
কোনো সদোত্তর না পাওয়ায় সঙ্গে সঙ্গেই ফুটপাত দখলমুক্ত করার নির্দেশ দেন।

সিটি কর্পোরেশনের কর্মীরা এসে ৩০ মিনিটের মধ্যেই দোকানপাট সরিয়ে ফুটপাতটি মানুষ চলাচলের জন্য উন্মুক্ত করে দেয়। এসময় স্থানীয় বাসিন্দারা এসে ফুটপাত লাগুয়া স্থায়ীভাবে গড়ে উঠা রাইনখোলা বাজারের বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ করেন। বাজারটির অনুমতিপত্র দেখাতে বলা হলেও কেউ তা দেখাতে পারেনি।

তাৎক্ষণিকভাবে মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম এটি ভেঙ্গে ফেলার নির্দেশ দেন। ডিএনসিসি মেয়র অভিযান সম্পর্কে বলেন, ‘সাধারণ মানুষ যাতে পায়ে হেঁটে চলাচল করতে পারে এ জন্য ফুটপাত তৈরি করা হয়েছে। কিন্তু সেই ফুটপাত দখল করে কাঁচা বাজার বসানো হয়।

মানুষ বাধ্য হয়ে ফুটপাত ছেড়ে মূল রাস্তা দিয়ে চলাচল করে। এতে যে কোনো সময় বড় ধরনের দুর্ঘটনা ঘটতে পারে।’এ সময় তিনি অবৈধভাবে স্থাপিত বাজার সম্পর্কে বলেন, ‘সিটি কর্পোরেশন কাউকে অবৈধ দখলের জন্য কোন বৈধ নোটিশ দেবে না।

ডিএনসিসি চলবে তার নিজের গতিতে। এর আগে ডিএনসিসি মেয়র চিড়িয়াখানার পাশে জাতীয় উদ্ভিত উদ্যানে মশক নিধন কার্যক্রম দেখতে যান। এ সময় তিনি উদ্যানের ডোবাগুলো পরিদর্শন করে এর বাস্তবচিত্র দেখে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

এ সময় তিনি মুঠোফোনে উদ্যানের পরিচালককে আগামী ৭ দিনের মধ্যে ডোবাটি পরিস্কার করতে বলেন। সাত দিন পর আবারও স্থানটি পরিদর্শনে যাবেন বলে জানান।