‘প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এহেন বক্তব্য আশা করা যায় না’

জাতীয় মহানগর রাজনীতি লিড নিউজ সমগ্র বাংলা

‘দেশের প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে এহেন বক্তব্য আশা করা যায় না’ বলে মন্তব্য করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। খালেদা জিয়াকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসা প্রদানের বিষয়ে প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে প্রসঙ্গ টেনে বৃহস্পতিবার দুপুরে এক আলোচনা সভায় বিএনপি মহাসচিব এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া গুরুতর অসুস্থ।আমরা আগেই বলেছি তিনি জীবন-মৃত্যুর সন্ধিক্ষণে। তার চিকিৎসা দরকার এবং সেই চিকিৎসা এই দেশে সম্ভব হচ্ছে না। চিকিৎসকরা জানিয়েছেন, যে টেকনোলজিতে চিকিৎসা করা দরকার সেই টেকনোলজি এখানে নেই।

সুতরাং, তাকে অবিলম্বে দেশের বাইরে উন্নত চিকিৎসাকেন্দ্রে পাঠানো দরকার। কিন্তু কী দুর্ভাগ্য আমাদের যে সরকার জোর করে ক্ষমতা দখল করে দেশ চালাচ্ছেন তিনি বলছেন, অনেক মানবতা দেখিয়েছি। আর কত মানবতা দেখাব। এটা কোনো সভ্য দেশের নেতার কাছ থেকে আশা করা যায় না।’

তিনি বলেন, দুর্ভাগ্য আমাদের যে নেত্রী তার সারাটা জীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন, লড়াই করেছেন, গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠা করবার জন্য কারাগারে গেছেন, গণতন্ত্রকে প্রতিষ্ঠা করবার জন্য তিনি নিগৃহীত হয়েছেন। সেই নেত্রীকে আজকে তার বিশেষ চিকিৎসা, উন্নত চিকিৎসার কোনো সুযোগ দেয়া হচ্ছে না।’

গত ১৩ নভেম্বর থেকে বসুন্ধরায় এভারকেয়ার হাসপাতালের সিসিইউতে লিভারসিরোসিসে আক্রান্ত হয়ে বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া চিকিৎসাধীন আছেন।তার রক্তক্ষরণ হচ্ছে থেমে থেমে। তার মেডিকেল বোর্ড অবিলম্বে তাকে বিদেশে উন্নত চিকিৎসাকেন্দ্রে নিয়ে যাওয়ার সুপারিশ করেছে।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘গত এক যুগে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় আসার পর থেকে বাংলাদেশের রাজনৈতিক সংস্কৃতি সম্পূর্ণভাবে বদলে গেছে। এখানে এখন সত্য সুন্দর বলতে কিছু নেই, ন্যায় বলতে কিছু নেই। এখানে এখন ভয়াবহ প্রতিহিংসা, ভয়াবহ অন্যায়-অত্যাচার-নির্যাতন ছাড়া আর কিছু নেই।’ ‘

জাতীয় প্রেসক্লাব মিলনায়তনে বিএনপির প্রয়াত নেতা সাবেক মন্ত্রী চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফের প্রথম মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে ‘চৌধুরী কামাল ইবনে ইউসুফ স্মৃতিপরিষদ’র উদ্যোগে এই আলোচনা সভা হয়।

কবি আবদুল হাই শিকদারের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক শহিদুল ইসলাম বাবুলের পরিচালনায় আলোচনা সভায় বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান হাফিজ উদ্দিন আহমেদ, কেন্দ্রীয় নেতা আমান উল্লাহ আমান, আবদুস সালাম, জহিরুলহক শাহজাদা মিয়া, ইসমাইল জবিহউল্লাহ, খায়রুল কবির খোকন, মাশুকুর রহমান মাশুক, ঢাকা সাংবাদিক ইউনিয়নের কাদের গণি চৌধুরী বক্তব্য রাখেন।