1. admin@cbctvbd.com : admin :
  2. cbctvbd@gmail.com : cbc tv : cbc tv
শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ১০:৩৪ পূর্বাহ্ন

বিএনপির সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠকে বসেন হেফাজত নেতারা

নিজস্ব প্রতিবেদক
  • Update Time : বুধবার, ২৮ এপ্রিল, ২০২১

২০১৩ সালের ৫ মে শাপলা চত্বর থেকে চলতি বছরের ২৬ মার্চ বায়তুল মোকাররম। প্রেক্ষাপট ভিন্ন হলেও ধর্মকে পুঁজি করে দেশজুড়ে হেফাজতে ইসলামের তাণ্ডবের চিত্র একই।

আন্দোলনের নামে ধারাবাহিক এই সহিংসতার পেছনে ছিল দীর্ঘ মেয়াদি পরিকল্পনা এবং সরকার উৎখাতে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের ষড়যন্ত্র।
সরকার বিরোধী বিভিন্ন দলের অর্থায়নসহ সার্বিক সহযোগিতায় তাদেরই এজেন্ডা বাস্তবায়ন করতে চেয়েছিল হেফাজতে ইসলাম। হেফাজত নেতারা মনে করতেন, সরকার পতন হলে তাদের সহায়তা ছাড়া কেউ রাষ্ট্রক্ষমতায় যেতে পারবে না। হেফাজতে ইসলামকে ব্যবহার করে রাষ্ট্রক্ষমতায় যেতে বার বার ঢাল হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে মাদ্রাসাছাত্রদের।

হেফাজত ইসলামের সদ্য বিলুপ্ত কেন্দ্রীয় কমিটির বেশ কয়েকজন নেতাকে রিমান্ডে এনে জিজ্ঞাসাবাদ করছে পুলিশ। ধারাবাহিক এই জিজ্ঞাসাবাদে সরকার বিরোধী জামায়াত-বিএনপি নেতৃবৃন্দের সঙ্গে হেফাজতের সরাসরি সংশ্লিষ্টতা পাওয়া গেছে।

মহানগর গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) সূত্র জানায়, ২০১৩ সালের ৫ মে মতিঝিলের শাপলা চত্বরে কর্মসূচির মাধ্যমে সরাসরি সরকার পতনের ষড়যন্ত্র করেছিল হেফাজতে ইসলাম। আর এই ষড়যন্ত্রে হেফাজতের সঙ্গী ছিল তৎকালীন বিরোধী দল জামায়াত-বিএনপি জোট।

তদন্ত সংশ্লিষ্ট একাধিক কর্মকর্তা জানান, ৫ মে ওই কর্মসূচির আগে দফায় দফায় বৈঠক করেন হেফাজত ও বিএনপি নেতারা। হেফাজত নেতা আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী ও বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াও গোপন বৈঠকে বসেছিলেন।

এছাড়াও বিএনপি নেতা সাদেক হোসেন খোকাসহ জামায়াতের অনেকের সঙ্গে বৈঠক হয় হেফাজত নেতাদের। বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় হেফাজতের ১৩ দফা দাবি বাস্তবায়ন না হলে সরকার পতনের আন্দোলন করা হবে। সে অনুযায়ী ৫ মে’র তাণ্ডবে বিএনপি, জামায়াত ও শিবিরের কর্মীরা জড়িত ছিলেন।

এর একটি বৈঠকে ঢাকা অবরোধ কর্মসূচির জন্য হেফাজতকে মোটা অঙ্কের টাকাও দেওয়া হয়। টাকার একটি বড় অংশ দেন খালেদা জিয়ার তৎকালীন উপদেষ্টা ও ব্যবসায়ী আবদুল আউয়াল মিন্টু।

ডিবির অতিরিক্ত কমিশনার এ কে এম হাফিজ আক্তার বলেন, ২০১৩ সালের ৫ মে এর আগে আবদুল আউয়াল মিন্টুর সঙ্গে হেফাজতের বিপুল পরিমাণ টাকার লেনদেন হয়েছে। তথ্য-উপাত্ত এবং তদন্তে এ বিষয়ে আরও অনেক কিছুই বেরিয়ে আসবে। তদন্তে যথাযথ তথ্য বেরিয়ে এলে সে অনুযায়ী আইনি ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

ডিবির আরেক কর্মকর্তা বলেন, ২০১৩ সালের ৫ মে’র ষড়যন্ত্রে কারা কারা অংশ নিয়েছিলেন এবং কারা কারা এর পেছনে ছিলেন তাদের নাম আমরা পেয়েছি। হেফাজতকে যারা রসদ জুগিয়েছিল সরকার বিরোধী সেইসব রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দর নাম বেরিয়ে আসছে।

মামুনুলের দুই অ্যাকাউন্টে সাড়ে ৬ কোটি টাকা লেনদেন
হেফাজতে ইসলামের সবচেয়ে আলোচিত নেতা মামুনুল হকের দুই অ্যাকাউন্টে সাড়ে ছয় কোটি টাকা লেনদেনের তথ্য পেয়েছে পুলিশ। এর একটি অ্যাকাউন্টে ৪৭ লাখ এবং আরেকটি অ্যাকাউন্টে প্রায় ছয় কোটি টাকার লেনদেন হয়। হেফাজতকে এখনো আর্থিক সহায়তা করছে এমন ৩১৩ জনকে ইতোমধ্যে শনাক্ত করা গেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

Comments are closed.

More News Of This Category
© All rights reserved © 2020 cbctvbd (cable bangla channel)
Developed By : Porosh Soft